রোহিঙ্গা নিশ্চিহ্নের পিছনে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের ভূমিকা রয়েছে : ড. ইফতেখার

এনামুল হক, প্রিন্স মাহামুদ আজিম : মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গা সম্প্রদায়কে ফিরত পাঠানোর দায়িত্ব আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের। কারন রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীকে নিশ্চিহ্ন করার পিছনে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের ভূমিকা ছিল এবং এখনো আছে। তারা মিয়ানমারকে রাজনৈতিক, অর্থনৈতিকসহ সব ধরনের সহযোগিতা করে আসছে । রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীকে নিশ্চিহ্ন করার ব্যাপারে মূলত যারা দায়ী এখন তাদেরকে অগ্রণী ভূমিকা নিতে হবে। টিভিএনএ’র সাথে আলাপকালে এমন মন্তব্য করেন ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের (টিআইবি) নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান।

তিনি আরও বলেন, রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের বিষয়ে বাংলাদেশ সরকারের সাথে মিয়ানমার সরকারের দ্বিপাক্ষিক চুক্তি হলেও এটা আশানুরূপ কোনও ফল দিবে না। কেননা এটা মূলত মিয়ানমার সরকারের সাথে রাখাইন রাজ্যের জনগনের সামাজিক ও রাজনীতিক একটা চুক্তির বিষয়। এই চুক্তির মাধ্যমে রোহিঙ্গাদের মাঝে একটা নিরাপত্তাবোধ সৃষ্টি করা সম্ভব হবে। তবেই তারা নিজের দেশে ফিরত যেতে আগ্রহী হবে। সেটা যতদিন না হবে ততদিন রোহিঙ্গাদের নিজ দেশে প্রত্যাবাসনের বিষয়টি ফাঁকা বুলি ছাড়া আর কিছু নয়।

ড. ইফতেখার বলেন, মূলত মিয়ানমার সরকারের প্রধান লক্ষ্য ছিল রোহিঙ্গাদের বহিষ্কার করে বাংলাদেশে পাঠানো। তারা তাদের লক্ষ্য বাস্তবায়নে সফল হয়েছে। দশ লক্ষ মিয়ানমারের রোহিঙ্গা নাগরিকরা তাদের পরিচয় সঠিকভাবে দিতে পারবে না এটাই স্বাভাবিক। এটা জেনেই মিয়ানমার স্বৈরাচারী সরকার বলছে রোহিঙ্গাদের নাগরিকত্ব পরিচয় নিশ্চিত করার মাধ্যমে তাদেরকে ফিরত নেওয়া হবে। এটা মিথ্যাচার ব্যতীত আর কিছুই নয়। কাজেই তাদের ফিরত নেওয়ার আগ্রহ মিয়ানমার সরকারের আছে এটা যদি আমরা মনে করি। তাহলে আমরা বোকার রাজ্যে বাস করছি। রোহিঙ্গা ইস্যুতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের স্বার্থ সংশ্লিষ্টতা আছে বলেই তারা এমন দৃঢ় অবস্থান রাখতে পারছে। তাই শুধুমাত্র মিয়ানমারের সাথে দ্বিপাক্ষিক চুক্তি না করে আন্তর্জাতিক বিশ্বে বাংলাদেশের যে গুরুত্বপূর্ণ অবস্থান রয়েছে। সেটা কাজে লাগিয়ে প্রভাবশালী দেশগুলোর মাধ্যমে আন্তর্জাতিক কূটনৈতিক চাপ মিয়ানমারের উপর আরোপ করতে হবে। তবে সেটা শুধু মুখের ভাষায় নয় বরং সুনির্দিষ্ট ভাবে তাদের উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের মাধ্যমে হুমকি দিতে হবে। তাহলে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন করা সম্ভব বলে আমি মনে করি।

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>